Monday , August 30 2021
Home - ভিন্ন খবর - চীনের বিরুদ্ধে আফগান মাটি ব্যবহার করতে দেবে না তালেবান

চীনের বিরুদ্ধে আফগান মাটি ব্যবহার করতে দেবে না তালেবান

দুই দিনের চীন সফরে তালেবান প্রতিনিধি চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ইর সঙ্গে সাক্ষাৎ করে। 

আফগানিস্তানের মাটি চীনের বিরুদ্ধে কাউকে ব্যবহার করতে দেবে না তালেবান। সফররত তালেবান প্রতিনিধিদল এই বলে চীনকে আশ্বস্ত করেছে। তালেবান মুখপাত্রের টুইটের বরাতে বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

দুই দিনের চীন সফরে নয় সদস্যের তালেবান প্রতিনিধিদল চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ইর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছে। দুই পক্ষের বৈঠকে আফগানিস্তানের শান্তিপ্রক্রিয়া ও নিরাপত্তা-সংক্রান্ত বিষয় আলোচিত হয়েছে। এ বৈঠক নিয়ে গতকাল বুধবার চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও তালেবানের কাছ থেকে পৃথক বক্তব্য এসেছে।

চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বক্তব্যে বলা হয়, তালেবান প্রতিনিধিদের বেইজিং বলেছে যে তারা আশা করে, সশস্ত্র গোষ্ঠীটি আফগান যুদ্ধের পরিসমাপ্তি টানা ও দেশ পুনর্গঠনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।

একই সঙ্গে চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, তিনি আশা করেন, তালেবান ইস্ট তুর্কেস্তান ইসলামিক মুভমেন্টকে দমন করবে। এই গোষ্ঠীকে চীনে তাদের জাতীয় নিরাপত্তার জন্য সরাসরি হুমকি মনে করে। চীনের অভিযোগ, এই গোষ্ঠী তাদের জিনজিয়াং অঞ্চলে সন্ত্রাসী তৎপরতায় জড়িত।

বৈঠক নিয়ে তালেবান মুখপাত্র মোহাম্মদ নাইম এক টুইটে বলেন, দুই দেশের রাজনীতি, অর্থনীতি ও নিরাপত্তা-সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে। এ ছাড়া আফগানিস্তানের বর্তমান পরিস্থিতি ও শান্তিপ্রক্রিয়া নিয়ে বৈঠকে আলোচনা হয়েছে।

তালেবান প্রতিনিধিদল বেইজিংকে আশ্বস্ত করে বলেছে, তারা কাউকে চীনের বিরুদ্ধে আফগানিস্তানের মাটি ব্যবহার করতে দেবে না।

চীনও আফগানিস্তানকে সহায়তা অব্যাহত রাখার অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করেছে। একই সঙ্গে চীন বলেছে, তারা আফগানিস্তানের বিষয়ে কোনো হস্তক্ষেপ করবে না। তবে আফগান সমস্যার সমাধান ও শান্তি ফেরাতে সহায়তা করবে।

তালেবানের ভাষ্য, তাদের প্রতিনিধিদল চীনের আমন্ত্রণে এ সফর করে। সফরে তালেবান প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দেন উপনেতা মোল্লা বারাদার আখুন্দ। তিনি তালেবান মধ্যস্থতাকারীও।

আফগানিস্তান থেকে সব মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের প্রক্রিয়া শুরু হওয়ার পর তালেবান তাদের হামলা ও এলাকা দখলের তৎপরতা জোরদার করে। ইতিমধ্যে তারা দেশটির অর্ধেক এলাকা নিজেদের দখলে নেওয়ার দাবি করেছে। বিদেশি সেনারা আফগানিস্তান ত্যাগ করলে তালেবান আবার ক্ষমতা দখল করতে পারে বলে আশঙ্কা সৃষ্টি হয়েছে। এমন প্রেক্ষাপটে চীন সফর করল তালেবান প্রতিনিধিদল।